ফরিদগঞ্জ ০৮:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ফরিদগঞ্জ ইকরা মডেল মাদ্রাসা’র বৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংর্বধনা প্রদান ফরিদগঞ্জে সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আমীর আজম রেজার নির্বাচনী প্রচারনায় হামলা ও হুমকির অভিযোগ ফরিদগঞ্জে বিএনপির ভোট বর্জনের আহ্বানে লিফলেট বিতরণ ফরিদগঞ্জে আমির আজম রেজাকে সমর্থন দিয়ে মনোনয়ন প্রত্যাহার করলেন দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী নিরাপদ সড়কে বিশেষ অবদান রাখায় নিসচার ফরিদগঞ্জ উপজেলা শাখাকে সম্মাননা স্মারক প্রদান ফরিদগঞ্জে বসতঘরে প্রবেশ করে গৃহবধকে ধর্ষন চেষ্টায় আদালতে মামলা ফরিদগঞ্জে হাজী আউয়াল এর ইন্তেকাল ফরিদগঞ্জে ‘ফারিসা’র কমিটি গঠন ফরিদগঞ্জে ‘খাঁন ফাউন্ডেশনে’র শিক্ষা বৃত্তি ও পুরস্কার প্রদান ফরিদগঞ্জে ছেলের হাতে মা খু-ন

ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে ফরিদগঞ্জে পাড়ায় পাড়ায় বিশ্বকাপের উন্মাদনা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৫৩:৪৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৫ নভেম্বর ২০২২ ৩৪৩ বার পড়া হয়েছে

ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে ফরিদগঞ্জে পাড়ায় পাড়ায় বিশ্বকাপের উন্মাদনা

স্পোর্টস দোকান গুলোতে বিশ্বকাপ জার্সির ফসরা ।। দলের সমর্থনে ব্যানার করতে ডিজিটাল সাইন হাউজ গুলোতে উপছে পড়া ভিড়

শামীম হাসান : সময়ের ব্যবধানে দিনের হিসেবে হাতে গোনা আর মাত্র ক’দিন পরেই শুরু হচ্ছে কাতার বিশ্বকাপ। এবারের ফুটবল বিশ্বকাপের আসরটা কাতারে হলেও এর উত্তাপ ছড়িয়ে গেছে কাতারের সীমানা পেরিয়ে সারা বিশ্বে। ২০২২ এর কাতার বিশ্বকাপের উত্তাপ বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে, ৪ বছরের দীর্ঘ অপেক্ষার ইতি ঘটিয়ে আবারও দেশের ফুটবল প্রেমিদের ফুটবল উৎসবের মহেন্দ্রক্ষণের অপেক্ষা মাত্র, ইতোমধ্যে গ্রামের চায়ের দোকান চত্ত্বর থেকে উপজেলা শহর পর্যন্ত প্রিয় দলের সমর্থনের ব্যানার। বিশেষ করে বিশ্বকাপের চির পরাশক্তির দল আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল দলের সমর্থনের ব্যানার আর পতাকা বেশি লক্ষ্য করা যায়। ফরিদগঞ্জ উপজেলা সদরের বাহিরে গ্রামে-গঞ্জে ঘুরে দেখা যায় চায়ের দোকান চত্ত্বর ও সড়কের পাশে প্রিয় দলের সমর্থনের ব্যানার ও পতাকা উড়ছে।

ফরিদগঞ্জ বাজার সহ উপজেলার রূপসা বাজার, গৃদকালিন্দিয়া বাজার, চান্দ্রা বাজার সহ প্রায় সবগুলো বাজারেই স্পোর্টস সংশ্লিষ্ট দোকান ও কাপড়ের দোকান গুলোতে দেখা দেখা মিলছে বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী দলের জার্সির অনুরূপ জার্সি ও পতাকা। শুধু যে প্রিয় দলের সমর্থকদের জার্সি কেনার ধুম পড়েছে তাই নয়, সমর্থকদের মধ্যে চলছে কার চেয়ে কে কত বড় পতাকা বানাবে তার প্রতিযোগিতা। বিভিন্ন বাসা বাড়ির চাঁদে উড়ছে সমর্থিত প্রিয় ফুটবল দলের পতাকা।

শুধু জার্সি আর পতাকাই নয়, ফরিদগঞ্জ বাজারের রাফি ডিজিটাল সাইন, সিয়াম অফেসেট প্রেস, ফরিদগঞ্জ ডিজিটাল সাইন,রূপসা বাজারের রূপসা ডিজিটাল সাইন, এ আর ডিজিটাল সাইন সহ সবগুলো ডিজিটাল সাইনেই দেখা যাচ্ছে উপচে পড়া ভিড়। ডিজিটাল সাইনগুলোর মালিক এবং ডিজাইনররা জানান, বিশ্বকাপের উত্তাপ আমাদের ডিজিটাল হাউজগুলোতে বইছে বিশেষ করে অন্যান্য সময়ের তুলনায় এখন অনেক বেশি কাজের চাপ আছে। বর্তমান সময়ে কাজের চাপের কারনে গভীর রাত পর্যন্তও কাজ করতে হচ্ছে। আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল সমর্থকরা নিজের ছবি দিয়ে ব্যানার তৈরি করছে বিশেষ করে যুবক বয়সী ফুটবল সমর্থকদের ব্যানার তৈরি করতে বেশি আসছেন।

ফরিদগঞ্জ ডিজিটাল সাইনের পরিচালক নোমান সালেহী জানান, বিশ্বকাপ উপলক্ষে বর্তমান সময়ে ডিজিটাল ব্যানারের বেশ চাহিদা রয়েছে এবং কাজেরও বেশ চাপ রয়েছে, চাহিদা পূরণে আমাদের হাউজের ডিজাইনার ও মেশিনম্যানরা রাত জেগে কাজ করছে।

ফরিদগঞ্জ বাজারের জার্সি ও পতাকা বিক্রেতা ইত্যাদি স্পোর্টসের স্বত্বাধিকারী জিয়াউর রহমান জিয়া ফরিদগঞ্জ সংবাদের এই প্রতিনিধিকে জানান, শীতকালীন ব্যাডমিন্টনের মৌসুম ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের কারনে ত্রিমূখী আসর হওয়ায় ক্রেতারা ক্রিড়া সামগ্রী কিনতে কিছুটা হিম-সিম খাচ্ছে, সেই সাথে চায়না থেকে জার্সি ও ভিন্ন দেশের পতাকা না আসায় জার্সির দাম তুলনামূলক কিছুটা বেশি হওয়ায় ক্রেতাদের জার্সি ও পতাকা কেনায় খানিকটা বাদা পড়েছে। আমাদের ব্যবসায়িদের প্রত্যাশিত বিক্রি না হলে মোটামুটি জার্সি ও পতাকা বিক্রি হচ্ছে তবে বিশ্বকাপের সময় যত ঘনিয়ে আসবে আশা করি বিক্রি আরোও বাড়বে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে ফরিদগঞ্জে পাড়ায় পাড়ায় বিশ্বকাপের উন্মাদনা

আপডেট সময় : ০৩:৫৩:৪৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৫ নভেম্বর ২০২২

ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে ফরিদগঞ্জে পাড়ায় পাড়ায় বিশ্বকাপের উন্মাদনা

স্পোর্টস দোকান গুলোতে বিশ্বকাপ জার্সির ফসরা ।। দলের সমর্থনে ব্যানার করতে ডিজিটাল সাইন হাউজ গুলোতে উপছে পড়া ভিড়

শামীম হাসান : সময়ের ব্যবধানে দিনের হিসেবে হাতে গোনা আর মাত্র ক’দিন পরেই শুরু হচ্ছে কাতার বিশ্বকাপ। এবারের ফুটবল বিশ্বকাপের আসরটা কাতারে হলেও এর উত্তাপ ছড়িয়ে গেছে কাতারের সীমানা পেরিয়ে সারা বিশ্বে। ২০২২ এর কাতার বিশ্বকাপের উত্তাপ বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে, ৪ বছরের দীর্ঘ অপেক্ষার ইতি ঘটিয়ে আবারও দেশের ফুটবল প্রেমিদের ফুটবল উৎসবের মহেন্দ্রক্ষণের অপেক্ষা মাত্র, ইতোমধ্যে গ্রামের চায়ের দোকান চত্ত্বর থেকে উপজেলা শহর পর্যন্ত প্রিয় দলের সমর্থনের ব্যানার। বিশেষ করে বিশ্বকাপের চির পরাশক্তির দল আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল দলের সমর্থনের ব্যানার আর পতাকা বেশি লক্ষ্য করা যায়। ফরিদগঞ্জ উপজেলা সদরের বাহিরে গ্রামে-গঞ্জে ঘুরে দেখা যায় চায়ের দোকান চত্ত্বর ও সড়কের পাশে প্রিয় দলের সমর্থনের ব্যানার ও পতাকা উড়ছে।

ফরিদগঞ্জ বাজার সহ উপজেলার রূপসা বাজার, গৃদকালিন্দিয়া বাজার, চান্দ্রা বাজার সহ প্রায় সবগুলো বাজারেই স্পোর্টস সংশ্লিষ্ট দোকান ও কাপড়ের দোকান গুলোতে দেখা দেখা মিলছে বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী দলের জার্সির অনুরূপ জার্সি ও পতাকা। শুধু যে প্রিয় দলের সমর্থকদের জার্সি কেনার ধুম পড়েছে তাই নয়, সমর্থকদের মধ্যে চলছে কার চেয়ে কে কত বড় পতাকা বানাবে তার প্রতিযোগিতা। বিভিন্ন বাসা বাড়ির চাঁদে উড়ছে সমর্থিত প্রিয় ফুটবল দলের পতাকা।

শুধু জার্সি আর পতাকাই নয়, ফরিদগঞ্জ বাজারের রাফি ডিজিটাল সাইন, সিয়াম অফেসেট প্রেস, ফরিদগঞ্জ ডিজিটাল সাইন,রূপসা বাজারের রূপসা ডিজিটাল সাইন, এ আর ডিজিটাল সাইন সহ সবগুলো ডিজিটাল সাইনেই দেখা যাচ্ছে উপচে পড়া ভিড়। ডিজিটাল সাইনগুলোর মালিক এবং ডিজাইনররা জানান, বিশ্বকাপের উত্তাপ আমাদের ডিজিটাল হাউজগুলোতে বইছে বিশেষ করে অন্যান্য সময়ের তুলনায় এখন অনেক বেশি কাজের চাপ আছে। বর্তমান সময়ে কাজের চাপের কারনে গভীর রাত পর্যন্তও কাজ করতে হচ্ছে। আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল সমর্থকরা নিজের ছবি দিয়ে ব্যানার তৈরি করছে বিশেষ করে যুবক বয়সী ফুটবল সমর্থকদের ব্যানার তৈরি করতে বেশি আসছেন।

ফরিদগঞ্জ ডিজিটাল সাইনের পরিচালক নোমান সালেহী জানান, বিশ্বকাপ উপলক্ষে বর্তমান সময়ে ডিজিটাল ব্যানারের বেশ চাহিদা রয়েছে এবং কাজেরও বেশ চাপ রয়েছে, চাহিদা পূরণে আমাদের হাউজের ডিজাইনার ও মেশিনম্যানরা রাত জেগে কাজ করছে।

ফরিদগঞ্জ বাজারের জার্সি ও পতাকা বিক্রেতা ইত্যাদি স্পোর্টসের স্বত্বাধিকারী জিয়াউর রহমান জিয়া ফরিদগঞ্জ সংবাদের এই প্রতিনিধিকে জানান, শীতকালীন ব্যাডমিন্টনের মৌসুম ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের কারনে ত্রিমূখী আসর হওয়ায় ক্রেতারা ক্রিড়া সামগ্রী কিনতে কিছুটা হিম-সিম খাচ্ছে, সেই সাথে চায়না থেকে জার্সি ও ভিন্ন দেশের পতাকা না আসায় জার্সির দাম তুলনামূলক কিছুটা বেশি হওয়ায় ক্রেতাদের জার্সি ও পতাকা কেনায় খানিকটা বাদা পড়েছে। আমাদের ব্যবসায়িদের প্রত্যাশিত বিক্রি না হলে মোটামুটি জার্সি ও পতাকা বিক্রি হচ্ছে তবে বিশ্বকাপের সময় যত ঘনিয়ে আসবে আশা করি বিক্রি আরোও বাড়বে।