ফরিদগঞ্জ ১২:৩৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ফরিদগঞ্জে সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আমীর আজম রেজার নির্বাচনী প্রচারনায় হামলা ও হুমকির অভিযোগ ফরিদগঞ্জে বিএনপির ভোট বর্জনের আহ্বানে লিফলেট বিতরণ ফরিদগঞ্জে আমির আজম রেজাকে সমর্থন দিয়ে মনোনয়ন প্রত্যাহার করলেন দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী নিরাপদ সড়কে বিশেষ অবদান রাখায় নিসচার ফরিদগঞ্জ উপজেলা শাখাকে সম্মাননা স্মারক প্রদান ফরিদগঞ্জে বসতঘরে প্রবেশ করে গৃহবধকে ধর্ষন চেষ্টায় আদালতে মামলা ফরিদগঞ্জে হাজী আউয়াল এর ইন্তেকাল ফরিদগঞ্জে ‘ফারিসা’র কমিটি গঠন ফরিদগঞ্জে ‘খাঁন ফাউন্ডেশনে’র শিক্ষা বৃত্তি ও পুরস্কার প্রদান ফরিদগঞ্জে ছেলের হাতে মা খু-ন ফরিদগঞ্জে বৃষ্টির প্রার্থনা করে ইসতিসকার নামাজ আদায়

ফরিদগঞ্জ মজিদিয়া কামিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মুফতি এইচ এম আনোয়ার মোল্লা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:২০:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ মার্চ ২০২৩ ৪৫৭ বার পড়া হয়েছে

মোঃ জাহিদুল ইসলাম ফাহিম

ফরিদগঞ্জ মজিদিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ ড. একে এম মাহবুবুর রহমান এর শেষ কর্মদিবস হিসেবে ২৮ ফ্রেব্রুয়ারী শেষ করেন।

১ মার্চ ( বুধবার) ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে মজিদিয়া কামিল মাদরাসার উপাধ্যক্ষ মুফতি এইচ এম আনোয়ার মোল্লাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়।

এই মাদ্রাসার ছাত্র সংখ্যা বর্তমানে সহস্রাধিকেরও অধিক। এখানে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে রয়েছে সাধারণ এবং বিজ্ঞান বিভাগ। কারিগরি শিক্ষার জন্য রয়েছে আলাদা ব্যবস্থা। এখানে ফাযিল (ডিগ্রী) বি,এ এবং চার বছরের কোর্সে অনার্স রয়েছে। এছাড়াও এখানে কামিল (এম,এ) পর্যন্ত অধ্যয়ন করার সুযোগ রয়েছে। এখানে প্রত্যেকটি শ্রেণির পাঠদান সি,সি ক্যামেরার মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

শাহ্ সুফি আব্দুল মজিদ এর হাত ধরে ১৮৯৬ সালে এই প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু হয়। এটিকে চাঁদপুর জেলার সবচেয়ে প্রাচীন মাদ্রাসা হিসেবে ধরা হয়। শুধু চাঁদপুর নয়,এটিকে ভারতীয় উপমহাদেশের সবচেয়ে প্রাচীন প্রতিষ্ঠান হিসেবে ধরা হয়। ব্রিটিশ শাসনামল ও পাকিস্তান শাসনামল থেকে এখন পর্যন্ত এই ইসলামি বিদ্যানিকেতনটি সমানতালে তার শিক্ষা প্রদান করে আসছে। চাঁদপুর জেলার মধ্যে ইসলামিক বিভিন্ন বিষয়ের উপর একমাত্র অনার্স মাদ্রাসা এটি। যা ২০১০ সালে ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বৃহত্তর কুমিল্লা ও নোয়াখালীসহ মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের জন্য ইসলামি বিভিন্ন বিষয়ের উপর অনার্স বিভাগটি চালু করা হয়।এবং ২০১৬ সালের পরে মাদ্রাসাটি ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত হয়।

উল্লেখ্য যে, মুফতি এইচ এম আনোয়ার মোল্লা ফরিদগঞ্জ মজিদিয়া কামিল মাদরাসায় প্রথম যোগদান ১৯৯৭ সালে ফকিহ্ হিসেবে এবং পরবর্তী তে ২০০৪ সাল হতে উপাধ্যক্ষ হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করে আসছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

ফরিদগঞ্জ মজিদিয়া কামিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মুফতি এইচ এম আনোয়ার মোল্লা

আপডেট সময় : ০১:২০:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ মার্চ ২০২৩

মোঃ জাহিদুল ইসলাম ফাহিম

ফরিদগঞ্জ মজিদিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ ড. একে এম মাহবুবুর রহমান এর শেষ কর্মদিবস হিসেবে ২৮ ফ্রেব্রুয়ারী শেষ করেন।

১ মার্চ ( বুধবার) ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে মজিদিয়া কামিল মাদরাসার উপাধ্যক্ষ মুফতি এইচ এম আনোয়ার মোল্লাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়।

এই মাদ্রাসার ছাত্র সংখ্যা বর্তমানে সহস্রাধিকেরও অধিক। এখানে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে রয়েছে সাধারণ এবং বিজ্ঞান বিভাগ। কারিগরি শিক্ষার জন্য রয়েছে আলাদা ব্যবস্থা। এখানে ফাযিল (ডিগ্রী) বি,এ এবং চার বছরের কোর্সে অনার্স রয়েছে। এছাড়াও এখানে কামিল (এম,এ) পর্যন্ত অধ্যয়ন করার সুযোগ রয়েছে। এখানে প্রত্যেকটি শ্রেণির পাঠদান সি,সি ক্যামেরার মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

শাহ্ সুফি আব্দুল মজিদ এর হাত ধরে ১৮৯৬ সালে এই প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু হয়। এটিকে চাঁদপুর জেলার সবচেয়ে প্রাচীন মাদ্রাসা হিসেবে ধরা হয়। শুধু চাঁদপুর নয়,এটিকে ভারতীয় উপমহাদেশের সবচেয়ে প্রাচীন প্রতিষ্ঠান হিসেবে ধরা হয়। ব্রিটিশ শাসনামল ও পাকিস্তান শাসনামল থেকে এখন পর্যন্ত এই ইসলামি বিদ্যানিকেতনটি সমানতালে তার শিক্ষা প্রদান করে আসছে। চাঁদপুর জেলার মধ্যে ইসলামিক বিভিন্ন বিষয়ের উপর একমাত্র অনার্স মাদ্রাসা এটি। যা ২০১০ সালে ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বৃহত্তর কুমিল্লা ও নোয়াখালীসহ মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের জন্য ইসলামি বিভিন্ন বিষয়ের উপর অনার্স বিভাগটি চালু করা হয়।এবং ২০১৬ সালের পরে মাদ্রাসাটি ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত হয়।

উল্লেখ্য যে, মুফতি এইচ এম আনোয়ার মোল্লা ফরিদগঞ্জ মজিদিয়া কামিল মাদরাসায় প্রথম যোগদান ১৯৯৭ সালে ফকিহ্ হিসেবে এবং পরবর্তী তে ২০০৪ সাল হতে উপাধ্যক্ষ হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করে আসছেন।