ফরিদগঞ্জ ০১:২৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

ফরিদগঞ্জের কালির বাজারে বিদ্যালয়ের দেওয়াল ভেঙ্গে ইট ও লৌহার ফটক ছুরি ।। থানায় অভিযোগ

আব্দুল কাদের
  • আপডেট সময় : ০২:৩৪:৪৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০২৩ ২৬৩ বার পড়া হয়েছে

 

কালির বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের (ভারপ্রাপ্ত) প্রধান শিক্ষিকা কামরুন নাহার রুবি’র স্বামী ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মাইনুল ইসলাম রাছেল’র বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের দেয়ালের ইট ও লৌহার ফটক ভেঙ্গে নেওয়ার অভিযোগে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজি কমিটির সদস্য ও ইউপি সদস্য মো. জাহাঙ্গীর আলম পাটওয়ারী। চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলাধীন ফরিদগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নের আওতাধীন কালির বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরনো দেয়াল ভেঙ্গে মালামাল আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার (১৮ নভেম্বর) এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, সাম্প্রতিক ওই বিদ্যালয়টির নতুন করে একটি বাউন্ডারি দেয়ালের কাজ চালু হয়েছে। এর পূর্বে ওই বিদ্যালয়টির আঙ্গিনায় পুরাতন একটি বাউÐারি দেয়াল ছিল। নতুন দেয়ালটি সম্পন্ন হওয়ার পুর্বেই কোন রকম টেÐার ছাড়াই পুরাতন দেয়ালটি ভেঙ্গে ইট ও লোহাড় তৈরি ফটক আত্মসাৎ করে একটি চক্র। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। পরে তারা ওই দেয়ালটির লুন্ঠনকৃত মালামাল স্কুলটির ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা কামরুন্নাহার রুবি’র স্বামী ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মাইনুল ইসলাম রাছেল’র নবনির্মিত বাড়িতে দেখতে পায়। এরপরে বিষয়টি নিয়ে সরকারি মালামাল আত্মসাতের অভিযোগ করে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মো. জাহাঙ্গীর আলম পাটওয়ারী ফরিদগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

থানায় লিখিত অভিযোগের সূত্র ধরে রোববার (১৯ নভেম্বর) সকালে সরেজমিনে গেলে, স্কুলের পুরাতন দেয়ালটি বিক্রি ও ভাঙ্গার বিষয়ে কোনো টেন্ডার প্রক্রিয়া না হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা (ভারপ্রাপ্ত) কামরুন্নাহার রুবি জানান, দেয়াল কারা ভেঙ্গেছে আমি বলতে পারবো না। আপনার স্বামীর নবনির্মিত বাড়িতে দেয়ালের মালামাল পাওয়া গেছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঠিকাদারের লোকজন তাদের সুবিধার্থে সেখানে মালামাল রেখেছে হয়তো।
এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক প্যানেল চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম সোহেল বলেন, স্কুলের দেয়াল ভেঙ্গে মালামাল নেয়ার বিষয়ে অভিযোগের পর শনিবার রাতে থানার এসআই মাহফুজুল হকের নের্তৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এরপর রাতেই আত্মসাৎকারী চক্রটি একট্রাক ইট স্কুলের পাশে এনে ফেলে রেখে যায়। সরকারের নিয়ম বহিভর্‚ত কাজে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে প্রশাসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে আমি আশা করি।

এ দিকে নতুন দেয়াল নির্মাণ কাজের ঠিকাদারের সহকারি কামরুল ইসলাম দেয়াল ভাঙ্গার দ্বায় নিজের কাঁেধ নিয়ে বলেন, কাজের সুবিধার্থে মালামাল অন্যত্র রাখা হয়েছে। ওই বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় কালির বাজার কলেজের সহকারি অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলম পাটওয়ারী বলেন, স্কুলের দেয়াল ভাঙ্গার বিষয়টি প্রথমে আমি অবগত ছিলাম না। পরে জানতে পেরেছি, নতুন দেয়ালটির কাজের সুবিদ্বার্থে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লোকজন পুরাতন দেয়ালটি ভেঙ্গেছে। যেহেতু সরকারি নিয়ম অনুযায়ী দেয়ালটি ভাঙ্গা হয়নি, প্রধান শিক্ষিকাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছি।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও অভিযুক্ত মাইনুল ইসলাম রাছেল’র বক্তব্য দিতে রাজি হয়নি। তবে মাইনুল ইসলাম রাছেল’র শ্বশুর সাবেক ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম বলেন, মাইনুল ইসলাম রাছেল প্রতিহিংসার শিকার। তাকে অযথা হয়রানি করা হচ্ছে।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) জহিরুল ইসলাম বলেন, দেয়াল ভাঙ্গার বিষয়ে কোন টেন্ডার প্রক্রিয়া হয়নি। দেয়াল ভাঙ্গার বিষয়টি ইতোমধ্যে অবগত হয়েছি, তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইদুল ইসলাম বলেন, উপপুলিশ পরিদর্শক মাহফুজুল হককে তদন্তভার প্রদান করা হয়েছে। শনিবার রাতেই সে ঘটনাস্থলে গিয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মৌলি মন্ডল বলেন, সরকারি নিয়ম বহিভর্‚ত কোন ঘটনা সৃষ্টি হলে তদন্ত করে অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ফরিদগঞ্জের কালির বাজারে বিদ্যালয়ের দেওয়াল ভেঙ্গে ইট ও লৌহার ফটক ছুরি ।। থানায় অভিযোগ

আপডেট সময় : ০২:৩৪:৪৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০২৩

 

কালির বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের (ভারপ্রাপ্ত) প্রধান শিক্ষিকা কামরুন নাহার রুবি’র স্বামী ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মাইনুল ইসলাম রাছেল’র বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের দেয়ালের ইট ও লৌহার ফটক ভেঙ্গে নেওয়ার অভিযোগে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজি কমিটির সদস্য ও ইউপি সদস্য মো. জাহাঙ্গীর আলম পাটওয়ারী। চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলাধীন ফরিদগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নের আওতাধীন কালির বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরনো দেয়াল ভেঙ্গে মালামাল আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার (১৮ নভেম্বর) এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, সাম্প্রতিক ওই বিদ্যালয়টির নতুন করে একটি বাউন্ডারি দেয়ালের কাজ চালু হয়েছে। এর পূর্বে ওই বিদ্যালয়টির আঙ্গিনায় পুরাতন একটি বাউÐারি দেয়াল ছিল। নতুন দেয়ালটি সম্পন্ন হওয়ার পুর্বেই কোন রকম টেÐার ছাড়াই পুরাতন দেয়ালটি ভেঙ্গে ইট ও লোহাড় তৈরি ফটক আত্মসাৎ করে একটি চক্র। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। পরে তারা ওই দেয়ালটির লুন্ঠনকৃত মালামাল স্কুলটির ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা কামরুন্নাহার রুবি’র স্বামী ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মাইনুল ইসলাম রাছেল’র নবনির্মিত বাড়িতে দেখতে পায়। এরপরে বিষয়টি নিয়ে সরকারি মালামাল আত্মসাতের অভিযোগ করে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মো. জাহাঙ্গীর আলম পাটওয়ারী ফরিদগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

থানায় লিখিত অভিযোগের সূত্র ধরে রোববার (১৯ নভেম্বর) সকালে সরেজমিনে গেলে, স্কুলের পুরাতন দেয়ালটি বিক্রি ও ভাঙ্গার বিষয়ে কোনো টেন্ডার প্রক্রিয়া না হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা (ভারপ্রাপ্ত) কামরুন্নাহার রুবি জানান, দেয়াল কারা ভেঙ্গেছে আমি বলতে পারবো না। আপনার স্বামীর নবনির্মিত বাড়িতে দেয়ালের মালামাল পাওয়া গেছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঠিকাদারের লোকজন তাদের সুবিধার্থে সেখানে মালামাল রেখেছে হয়তো।
এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক প্যানেল চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম সোহেল বলেন, স্কুলের দেয়াল ভেঙ্গে মালামাল নেয়ার বিষয়ে অভিযোগের পর শনিবার রাতে থানার এসআই মাহফুজুল হকের নের্তৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এরপর রাতেই আত্মসাৎকারী চক্রটি একট্রাক ইট স্কুলের পাশে এনে ফেলে রেখে যায়। সরকারের নিয়ম বহিভর্‚ত কাজে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে প্রশাসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে আমি আশা করি।

এ দিকে নতুন দেয়াল নির্মাণ কাজের ঠিকাদারের সহকারি কামরুল ইসলাম দেয়াল ভাঙ্গার দ্বায় নিজের কাঁেধ নিয়ে বলেন, কাজের সুবিধার্থে মালামাল অন্যত্র রাখা হয়েছে। ওই বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় কালির বাজার কলেজের সহকারি অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলম পাটওয়ারী বলেন, স্কুলের দেয়াল ভাঙ্গার বিষয়টি প্রথমে আমি অবগত ছিলাম না। পরে জানতে পেরেছি, নতুন দেয়ালটির কাজের সুবিদ্বার্থে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লোকজন পুরাতন দেয়ালটি ভেঙ্গেছে। যেহেতু সরকারি নিয়ম অনুযায়ী দেয়ালটি ভাঙ্গা হয়নি, প্রধান শিক্ষিকাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছি।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও অভিযুক্ত মাইনুল ইসলাম রাছেল’র বক্তব্য দিতে রাজি হয়নি। তবে মাইনুল ইসলাম রাছেল’র শ্বশুর সাবেক ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম বলেন, মাইনুল ইসলাম রাছেল প্রতিহিংসার শিকার। তাকে অযথা হয়রানি করা হচ্ছে।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) জহিরুল ইসলাম বলেন, দেয়াল ভাঙ্গার বিষয়ে কোন টেন্ডার প্রক্রিয়া হয়নি। দেয়াল ভাঙ্গার বিষয়টি ইতোমধ্যে অবগত হয়েছি, তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইদুল ইসলাম বলেন, উপপুলিশ পরিদর্শক মাহফুজুল হককে তদন্তভার প্রদান করা হয়েছে। শনিবার রাতেই সে ঘটনাস্থলে গিয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মৌলি মন্ডল বলেন, সরকারি নিয়ম বহিভর্‚ত কোন ঘটনা সৃষ্টি হলে তদন্ত করে অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।