ফরিদগঞ্জ ১১:৫৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল -২০২৪ পদক পেলেন ফরিদগঞ্জের ‘শামছুন্নাহার’ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারিদের পূর্নাঙ্গ উৎসব বোনাসের দাবীতে স্মারক লিপি প্রদান ভাষা দিবসে প্রেরণা সামাজিক সংঘের সচেতনতামূলক সাইকেল র‍্যালি  র‍্যালি ও কেক কাটার মধ্য দিয়ে ফরিদগঞ্জে বিপি দিবস পালিত বর্ণিল আয়োজনে ‘ফরিদগঞ্জ বর্ণমালা কিন্ডারগার্টেন’র পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ফরিদগঞ্জে নিসচা’র ছাগল বিতরণ ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের বার্ষিক ভ্রমণ  ফরিদগঞ্জে চাঁদাবাজির মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান আটক ফরিদগঞ্জে স্বপ্ন ছায়া সামাজিক সংগঠনের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান ফরিদগঞ্জে দুই হাসপাতালে সিলগালা ও জরিমানা

মামলার নথিপত্র ছাড়াই এমএ হান্নানকে আদালতে হাজির করলেন পুলিশ

এমরান হোসেন লিটন
  • আপডেট সময় : ০৩:২৮:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ ডিসেম্বর ২০২৩ ১০০ বার পড়া হয়েছে

 

ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক, বিশিষ্ট শিল্পপতি এমএ হান্নানকে মামলার নথিপত্র ছাড়াই কোর্টে হাজির করেছে পুলিশ। মামলার নথিপত্র না থাকায় আদালত শুনানি না করে আবার আলহাজ এমএ হান্নানকে পুনরায় আদালতের হাজতখানায় ফেরত দেওয়া হয়। আজ বুধবার (২০ ডিসেম্বর) দুপুরে ঢাকার সিএমএম আদালতে এই ঘটনা ঘটে।

জানাযায়, গত ২৮ অক্টোবর বিএনপি’র মহাসমাবেশের দিন আরামবাগের নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে মতিঝিল থানার পুলিশ ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপি আহ্বায়ক ও চাঁদপুর জেলা বিএনপির এক নং সদস্য বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ্ব এম এ হান্নানকে আটক করে নিয়ে যায়। মতিঝিল থানার একটি মামলায় পুলিশ তাকে আদালতে হাজির করলেও বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়। শারীরিক অসুস্থতা এবং ব্যবসায়িক ও ব্যক্তিত্ব বিবেচনায় আদালত গত ১৪ই ডিসেম্বর তাকে জামিন দেয়। কিন্তু পুলিশ তাকে পল্টন থানার আরেকটি মামলায় কারাগারে আটক রাখার জন্য শোন এরেস্ট দেখানোর আবেদন করে আদালতে। সেই মামলায় আলহাজ্ব এম এ হান্নানকে কারাগারে আটক রাখার জন্য শোন এরেস্ট দেখানো হবে কিনা এ বিষয়ে আজকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট শেখ মোঃ সাদির আদালতে শুনানি হওয়ার কথা ছিল। তবে পুলিশ মামলার নথি পত্র জমা দিতে না পারায় আলহাজ্ব এম এ হান্নানকে আদালতের হাজত খানায় ফেরত নেওয়া হয়। বুধবার বিকেলের মধ্যে নথিপত্র সংগ্রহ করতে পারলে শুনানি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এ সময় আলহাজ্ব এম এ হান্নান জানান নির্বাচনে অংশ নিতে তার উপর ব্যাপক চাপ ছিল। কিন্তু সে চাপে তিনি মাথা নত করেননি। তাই জামিন পাওয়ার পরপরই তাকে আবার অন্য আরেকটি সাজানো মামলায় জেলে আটক রাখার চেষ্টা করছে সরকার। আলহাজ্ব এম এ হান্নান আরো বলেন, শেখ হাসিনা এবার একতরফা নির্বাচন করে পার পাবে না। আমাকে সাজানো মামলায় বাহিরে রাখলেও বিপদ এবং ভেতরের রাখলও বিপদ। কারণ, আমি সর্বোচ্চ একজন করদাতা। তাই ভেতরে রাখলে দেশ বৈদেশিক রেমিটেন্স হারাবে।

এ বিষয়ে এমএ হান্নানের আইনজীবী এডভোকেট মোঃ আবুল কাশেম জানান তার মক্কেল এম এ হান্নান দেশের একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী। রাজনৈতিক মামলায় তাকে হয়রানি করার জন্য পুলিশ কারাগারে আটক রাখছে। পল্টন থানার যে মামলায় পুলিশ তাকে শোন এরেস্ট দেখানোর জন্য আদালতে হাজির করেছে , সেই মামলার নথিপত্রই আদালতে হাজির করতে পারে না পুলিশ।

এই দিন আদালতে বিএনপি নেতা এম এ হান্নানকে দেখতে আসেন তার নির্বাচনীয় এলাকা ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপি সহ যুবদল স্বেচ্ছাসেবক দলের অসংখ্য নেতা কর্মী।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

মামলার নথিপত্র ছাড়াই এমএ হান্নানকে আদালতে হাজির করলেন পুলিশ

আপডেট সময় : ০৩:২৮:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ ডিসেম্বর ২০২৩

 

ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক, বিশিষ্ট শিল্পপতি এমএ হান্নানকে মামলার নথিপত্র ছাড়াই কোর্টে হাজির করেছে পুলিশ। মামলার নথিপত্র না থাকায় আদালত শুনানি না করে আবার আলহাজ এমএ হান্নানকে পুনরায় আদালতের হাজতখানায় ফেরত দেওয়া হয়। আজ বুধবার (২০ ডিসেম্বর) দুপুরে ঢাকার সিএমএম আদালতে এই ঘটনা ঘটে।

জানাযায়, গত ২৮ অক্টোবর বিএনপি’র মহাসমাবেশের দিন আরামবাগের নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে মতিঝিল থানার পুলিশ ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপি আহ্বায়ক ও চাঁদপুর জেলা বিএনপির এক নং সদস্য বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ্ব এম এ হান্নানকে আটক করে নিয়ে যায়। মতিঝিল থানার একটি মামলায় পুলিশ তাকে আদালতে হাজির করলেও বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়। শারীরিক অসুস্থতা এবং ব্যবসায়িক ও ব্যক্তিত্ব বিবেচনায় আদালত গত ১৪ই ডিসেম্বর তাকে জামিন দেয়। কিন্তু পুলিশ তাকে পল্টন থানার আরেকটি মামলায় কারাগারে আটক রাখার জন্য শোন এরেস্ট দেখানোর আবেদন করে আদালতে। সেই মামলায় আলহাজ্ব এম এ হান্নানকে কারাগারে আটক রাখার জন্য শোন এরেস্ট দেখানো হবে কিনা এ বিষয়ে আজকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট শেখ মোঃ সাদির আদালতে শুনানি হওয়ার কথা ছিল। তবে পুলিশ মামলার নথি পত্র জমা দিতে না পারায় আলহাজ্ব এম এ হান্নানকে আদালতের হাজত খানায় ফেরত নেওয়া হয়। বুধবার বিকেলের মধ্যে নথিপত্র সংগ্রহ করতে পারলে শুনানি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এ সময় আলহাজ্ব এম এ হান্নান জানান নির্বাচনে অংশ নিতে তার উপর ব্যাপক চাপ ছিল। কিন্তু সে চাপে তিনি মাথা নত করেননি। তাই জামিন পাওয়ার পরপরই তাকে আবার অন্য আরেকটি সাজানো মামলায় জেলে আটক রাখার চেষ্টা করছে সরকার। আলহাজ্ব এম এ হান্নান আরো বলেন, শেখ হাসিনা এবার একতরফা নির্বাচন করে পার পাবে না। আমাকে সাজানো মামলায় বাহিরে রাখলেও বিপদ এবং ভেতরের রাখলও বিপদ। কারণ, আমি সর্বোচ্চ একজন করদাতা। তাই ভেতরে রাখলে দেশ বৈদেশিক রেমিটেন্স হারাবে।

এ বিষয়ে এমএ হান্নানের আইনজীবী এডভোকেট মোঃ আবুল কাশেম জানান তার মক্কেল এম এ হান্নান দেশের একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী। রাজনৈতিক মামলায় তাকে হয়রানি করার জন্য পুলিশ কারাগারে আটক রাখছে। পল্টন থানার যে মামলায় পুলিশ তাকে শোন এরেস্ট দেখানোর জন্য আদালতে হাজির করেছে , সেই মামলার নথিপত্রই আদালতে হাজির করতে পারে না পুলিশ।

এই দিন আদালতে বিএনপি নেতা এম এ হান্নানকে দেখতে আসেন তার নির্বাচনীয় এলাকা ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপি সহ যুবদল স্বেচ্ছাসেবক দলের অসংখ্য নেতা কর্মী।